স্বাগতম

মোদের গরব, মোদের আশা, আমরি বাংলা ভাষা |পৃথিবীর সর্বত্র ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা বাংলাভাষী মানুষের প্রতি আন্তরিক শুভেচ্ছা জানাই!

শনিবার, ২৭ অক্টোবর, ২০১৮

প্রাকৃতিক গ্যাস ও বাংলাদেশ(Natural Gas & Bangladesh)




শক্তির উৎস হিসেবে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ এবং প্রাচীন উৎস হল প্রাকৃতিক গ্যাস ।  ১৯৭০ সাল থেকে উল্লেখযোগ্য পরিমাণে উত্তোলিত এবং ব্যাবহৃত হচ্ছে প্রাকৃতিক গ্যাস ।   
বাংলাদেশে বাণিজ্যিক কাজে ব্যাবহৃত শক্তির প্রায় ৭৫ প্রাকৃতিক গ্যাস থেকে আসে এখন পর্যন্ত দেশে ২৬ টি গ্যাস ক্ষেত্র আবিষ্কৃত হয়েছে   


নিজস্ব গ্যাস অনুসন্ধানের প্রযুক্তিগত দক্ষতা না থাকায়, বাংলাদেশ কে বিদেশী কোম্পানীর সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হয়ে গ্যাস উত্তোলন করতে হয়।   

যদিও বাংলাদেশে প্রচুর পরিমাণে গ্যাস আছে কিন্তু বর্তমানে তা ৫০ বছরের বেশি ব্যবহারের জন্য যথেষ্ট নয়।
বিশ্বের সবচেয়ে ঘনবসতিপূর্ণ দেশগুলোর মধ্যে একটি বাংলাদেশ
অদূর ভবিষ্যতে আমাদের একটি দীর্ঘ সময়ের জন্য শক্তির উৎস হিসেবে প্রাকৃতিক গ্যাসের প্রয়োজন
মূলত শিল্পের বিদ্যুৎ উৎপাদন,বিভিন্ন শিল্পের জন্য ব্যবহৃত তাপীকরণ প্রক্রিয়া ,  বিদ্যুত উৎপাদন প্ল্যান্ট এ, ইউরিয়া সার উৎপাদন এ , বসত বাড়ির রান্নার জ্বালানী হিসেবে  বাংলাদেশে প্রাকৃতিক গ্যাস ব্যবহার হয়ে থাকে।
২০০৫ থেকে সংকুচিত প্রাকৃতিক গ্যাস (সিএনজি) আকারে যানবাহনগুলিতে প্রাকৃতিক গ্যাস ব্যাবহার হচ্ছে 

শিল্পকেন্দ্র গ্রাহক হিসেবে বিভিন্ন ধরনের উদ্দেশ্যে প্রাকৃতিক গ্যাস ব্যবহার করছে:

১) এয়ার সাপ্লাই এর জন্য বয়লারের অগ্নিসংযোগ এ।
২) ইস্পাত, কাগজ, গ্লাস উৎপাদনে গলন, পোড়ানো বা শুকানোর কাজে সরাসরি গ্যাস ব্যাবহার হয়।
৩) একটি যৌথ তাপ এবং শক্তি (সিএইচপি) সুবিধা পরিচালনা করা, যা তাপ ও ​​স্থানীয় উভয়ই প্রদান করে।
গ্রিড থেকে বিদ্যুৎ কেনার পরিবর্তে একটি কারখানা চালানোর জন্য বিদ্যুৎ সরবরাহ করে থাকে ।



দ্রুত শিল্পায়ন শিল্পে গ্যাসের চাহিদা বৃদ্ধি করছে প্রাকৃতিক গ্যাস কে গ্রাস করছে এর মধ্যে প্রধান বাংলাদেশের টেক্সটাইল ও চামড়া শিল্প।
এছাড়া লোহা , ইস্পাত, খাদ্য প্রক্রিয়াজাতকরণ, পানীয় , তামাক, অ ধাতব খনিজ পদার্থ, রাসায়নিক পদার্থ, সজ্জা, কাগজ ও মুদ্রণ,অ লৌহঘটিত ধাতু, যন্ত্রপাতি প্রায় প্রতিটি শিল্পে শক্তির উৎস প্রাকৃতিক গ্যাস
বিকল্প শক্তির উৎসের সন্ধান না করতে পারলে , ভবিষ্যতে বাংলাদেশের শিল্প গুলো মুখ থুবড়ে পরবে।
ভবিষ্যতে শিল্প খাতে প্রাকৃতিক গ্যাসের ব্যবহার নিশ্চিত করার জন্য তাই একটি অগ্রাধিকার তালিকা প্রণয়ন করা উচিত। গুরুত্ববিশেষে বিভিন্ন ভোক্তাদের মাঝে ব্যবহারের বণ্টন নিয়ম পুনঃমুল্যায়ন করা উচিত  

জ্বালানি তীব্রতা এবং অর্থনৈতিক সুবিধা নিয়ে তদন্তের পর গ্যাস কে তাপ উৎপন্ন করার প্রক্রিয়ার পরিবর্তে শুধু কাঁচামাল হিসেবে ব্যবহার করা উচিত।
কিন্তু মনে রাখতে হবে শিল্পে গ্যাস ব্যবহারের পরিমাণ কোন ভাবেই কমবে না।তাই বিলম্ব না করে বর্তমান সিস্টেমের উন্নতি করা জরুরী।

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

 

দর্শক সংখ্যা

বিজ্ঞাপন

যোগাযোগ Amitptec6th@gmail.com

সতর্কবার্তা

বিনা অনুমতিতে টেক্সটাইল ম্যানিয়ার - কন্টেন্ট ব্যাবহার করা আইনগত অপরাধ,যেকোন ধরণের কপি পেস্ট কঠোরভাবে নিষিদ্ধ এবং কপিরাইট আইনে বিচারযোগ্য !